দিল্লিতে দলিত কন্যার মাকে কী বলেছিলেন পুরোহিত? সাংবাদিকদের কাছে মুখ খুললেন শিশুর মা

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : দিল্লিতে দলিত শিশুকন্যাকে ধর্ষণ করে খুনের ঘটনায় যখন উত্তাল রাজধানী, তখন ভয়াবহ অভিজ্ঞতার কথা শোনালেন শিশু কন্যার মা। সাংবাদিকদের কাছে এই নিয়ে মুখ খুলেছেন তিনি। ঠিক কী জানিয়েছেন নির্যাতিতার মা?

রবিবার শ্মশানের ওয়াটার কুলার থেকে জল আনতে গিয়েছিল ন’বছরের মেয়েটি। তারপর আর বাড়ি ফেরেনি। মেয়েটির মা-কে সন্ধ্যে ছটা নাগাদ ডেকে পাঠান শ্মশানের পুরোহিত। সেখানে গিয়ে বাবা-মা দেখেন মাটিতে পড়ে রয়েছে বাচ্চাটির নিথর দেহ। হাতে পোড়ার ক্ষত। জামা ভেজা। নির্যাতিতার মায়ের দাবি, “পুরোহিতকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম কীভাবে মারা গেল আমার মেয়ে? পুলিশে খবর দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু উনি আমাকে বললেন, বাড়ি গিয়ে চুপচাপ ঘুমিয়ে পড়ো। এই নিয়ে হই হট্টগোল করতে যেও না। তোমার মেয়ে ওয়াটার কুলার থেকে ইলেকট্রিক শক খেয়ে মারা গেছে। পুলিশে খবর দিলে আদালতে মামলা চলবে। ময়নাতদন্তের নামে পুলিশ তোমার মেয়ের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ কেটে বিক্রি করে দেবে। তারচেয়ে বরং আমি ওর সৎকার করে দিচ্ছি। তোমাদের তো সেই সামর্থ্য নেই!”

শিশুটির মায়ের দাবি, তাদের দূরে বসিয়ে রেখে পুরোহিত তিনজনের সঙ্গে মিলে তার বাচ্চার দাহকার্য করে দেয়। তার আরও দাবি, তার মেয়েকে ধর্ষণ করা হয়েছে। কিন্তু ময়নাতদন্তের রিপোর্টে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যায়নি। সে ক্ষেত্রে শিশুটির পোশাকের পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। অভিযুক্ত পুরোহিত রাধেশ্যাম,তার তিন সাগরেদকে লাই ডিটেক্টর ও ড্রাগ টেস্টের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।