ডি’মারিয়ার গোলে স্বপ্নপূরণ মেসির, ব্রাজিলকে হারিয়ে কোপা চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : অবশেষে আন্তর্জাতিক ট্রফি উঠছে লিওনেল মেসির হাতে। অ্যাঞ্জেল ডি’মারিয়ার বিশ্বমানের গোলে ব্রাজিলকে হারিয়ে কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন হল মেসির আর্জেন্টিনা। এই নিয়ে ১৫ বার কোপা চ্যাম্পিয়ন হল আর্জেন্টিনা। উরুগুয়ের পাশাপাশি কোপার সবচেয়ে সফল দল তারাই। ১৯৯৩ সালের পর প্রথমবার কোপা জিতল আর্জেন্টিনা। ২০১৪ সালে এই মারাকানা স্টেডিয়ামেই জার্মানির কাছে ১-০ গোলে হেরে গিয়েছিলেন মেসিরা।

রবিবার মারাকানায় ম্যাচের শুরুতে খেলা তেমন দৃষ্টিনন্দন হচ্ছিল না। কিন্তু সবকিছু বদলে গেল ম্যাচের ২২ মিনিটে। রড্রিগো ডি’পলের বাড়ানো বিশ্বমানের পাস থেকে বিশ্বমানের চিপ ডি মারিয়ার।
এতদিন ধরে যে অ্যাঞ্জেল দি মারিয়াকে দ্বিতীয়ার্ধেরও কিছুক্ষণ পরে মাঠে নামাচ্ছিলেন, আজ তাঁকেই দলের প্রথমার্ধে দেখতে পাওয়া গেল আর সেটাই আর্জেনটিনা কোচ লিও স্কালোনি ট্রাম্প কার্ড । সেইসঙ্গে বেড়ে যায় আর্জেন্টিনার খেলার গতিও। দেশের হয়ে ১১১তম ম্যাচ খেলতে নেমেছিলেন দি মারিয়া। আর এই ম্যাচে তিনি ২১তম গোলটা পেয়ে গেলেন।

আজ দুটো দলেই একটু বেশি আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলেছে। ১৫ মিনিটের মাথায় লিওনেল মেসি এবং নেইমার জুনিয়র দু’জনেই চোট পেয়ে মাঠের মধ্যে ছটফট করতে শুরু করেছিলেন। একদিকে ৪-৩-৩ ছকে যেখানে দল নামিয়েছেন স্কালোনি, সেখানেই তিতে ৪-২-৩-১ ছকে নিজেদের গুটি সাজিয়েছেন। আর্জেন্টিনার কিংবদন্তী ফুটবলার দিয়েগো মারাদোনার মৃত্যুর পর এই প্রথমবার কোনও মেজর টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলছে নীল-সাদা ব্রিগেড। এই ম্য়াচ জিতে তারা যে ফুটবলের রাজপুত্রকে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করবে, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই।

দ্বিতীয়ার্ধে ব্রাজিলের আক্রমণের ঝাঁঝ অনেকটাই বেড়ে যায়। পরপর আক্রমণ তারা তুলে আনে। ৫৫ মিনিটে ফের শট রিচার্লিসনের। কিন্তু, আর্জেন্টিনার অতন্দ্রপ্রহরী এমিলিয়ানো মার্টিনেজ অবশেষে দারুণ একটা সেভ করেন। ৮৬ মিনিটে নেইমার একটা ফ্রি-কিক নিলেও, গ্যাব্রিয়েলের দুরন্ত একটা শট মার্টিনেজ অসাধারণ সেভ করলেন। ৮৭ মিনিটে নিশ্চিত একটা গোল মিস করলেন মেসি। বেশ কয়েকটা সুযোগ ব্রাজিল তৈরি করলেও অবশেষে আর কোনও গোল তারা করতে পারেনি।

২০০৮ সালে বেজিংয়ে অলিম্পিক্সে তরুণ মেসির একমাত্র আন্তর্জাতিক জয়ের কারিগর ছিলেন অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। সেইবারও ফাইনালে গোল করে দলকে জয় এনে দিয়েছিলেন তিনি। কোপা আমেরিকায় ইতিহাসের আবারও নিজের পুনরাবৃত্তি ঘটাল। লিওনেল মেসির প্রথম সিনিয়র আন্তর্জাতিক খেতাব জয়ের রাতে ফাইনালে ফের গোল করলেন ডি মারিয়া। আবারও বেজিংয়ের মতোই মারাকানাতেও টুর্নামেন্ট সেরা নির্বাচিত হল মেসি।